শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হতে চান বাদল

0
427
ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হারুন অর রশিদ বাদল

মোশারফ হোসাইন তযু-নিজস্ব প্রতিবেদক: নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী আগামী মার্চ মাসে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সংসদ নির্বাচনের রেশ না কাটতেই গাজীপুরের শ্রীপুরে আগামী উপজেলা নির্বাচন নিয়ে আলোচনা বেশ জমে উঠেছে। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে পাড়া মহল্লায় আলোচনার ঝড় বইছে এই নির্বাচন নিয়ে। কে হচ্ছে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী, দলীয় মনোনয়ন কে পাবে? আওয়ামী লীগের টিকেট পাচ্ছে কে? এসব নিয়ে চলছে চুলছেঁড়া বিশ্লেষন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে সম্ভ্যাব্য প্রার্থীদের নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়টি উল্লেখ করে প্রার্থীদের পক্ষে জোরে-শোরে প্রচারনা লক্ষ্য করা গেছে। শ্রীপুরে আওয়ামী লীগ থেকে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম শোনা যাচ্ছে।

তাদের মধ্যে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে অন্যতম উপজেলার বরমী ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি, সমাজসেবক ও শিক্ষাঅনুরাগী মো. হারুন অর রশিদ বাদল। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষ হবার পর থেকেই তার কর্মী সমর্থকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে হারুন অর রশিদ বাদলকে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চাই দাবি উত্থাপন করে প্রচারণা ও আলোচনা শুরু করেছেন। হারুন অর রশিদ বাদল ২০০৯ সালের অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন (বাঘ) প্রতিকে। সেই নির্বাচনে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে চষে বেড়ানোর কারণে তিনি ব্যাপক পরিচিতির পাশাপাশি ভালো জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।

হারুন অর রশিদ বাদলের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ও সামাজিক জীবন। ১৯৮৭ সালে বরমী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ক্রীড়া সম্পাদক নির্বাচিত হন, ১৯৮৯ সালে বরমী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ন-সম্পাদক নির্বাচিত হন, ২০০২ সালে দীর্ঘদিন বরমী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। তিনি বরমী ইউনিয়নে সেক্রেড হার্ট ক্যাডেট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ও অধ্যক্ষ, বরমী সিটি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ, টি. ডাব্লিউ.এফ ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের প্রতিষ্ঠাতাসহ তিনি অসংখ্য সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সংগঠনের দায়িত্ব পালন ও পৃষ্ঠপোষকতা করছেন।

তিনি বরমী বাজার উচ্চ বিদ্যালয় হতে অষ্টম শ্রেণীর বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী। ১৯৯১ সালে এসএসসিতে বাংলাদেশ ব্যাংক উচ্চ বিদ্যালয় মতিঝিল থেকে স্টার মার্কস পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন। ১৯৯৩ সালে বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে নটরডেম কলেজ হতে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন। ১৯৯৭ সালে মাদ্রাজ বিশ্ব বিদ্যালয় (ভারত) হতে বি.বি.এ ও ২০০৪ হতে জাতীয় বিশ্ব বিদ্যালয় হতে ইংরেজী মাধ্যমে এম.কম সফলতার সাথে শেষ করেন।

হারুন অর রশিদ বাদল বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে দীক্ষিত হয়ে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনাকালীন ছাত্রলীগের যোগদানের মাধ্যমে রাজনীতির হাতেখড়ি হয়। তখন থেকে দীর্ঘসময় গরীব দুখী মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছি। দীর্ঘ বছর ধরে আমার প্রিয় নেতা নবনির্বাচিত গাজীপুর-৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজের রাজনৈতিক আদর্শ আমাকে অনুপ্রানিত করে। আমি এমপি মহোদয়ের একজন আস্থাবাজন কর্মী হিসেবে তার সকল সিদ্বান্তকে আমি বাস্তবায়নের চেষ্টা করে যাবো। যতদিন বেঁচে থাকবো প্রিয় নেতার আদর্শে রাজনীতি ও সমাজসেবা করে যাবো।

তিনি আরো বলেন, ২০০৯ সালে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলাম আমার প্রতিক ছিল (বাঘ)। আর বর্তমান সংসদ সদস্য মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে তার প্রতিক ছিল (মাছ)। সেসময় নিজের ভোট চাইতে গিয়ে ভোটরদের অনুরোধ করে বলেছি আমাকে ভোট দেন বা-না দেন আমার প্রিয় নেতা ইকবাল হোসেন সবুজকে চেয়ারম্যান হিসেবে মাছ মার্কায় ভোট দিবেন। সেই নির্বাচনে বিপুল ভোটে শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হন মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ।

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আ.লীগের মনোনিত প্রার্থী হিসেবে ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচন করতে চাই আমি। আর তৃণমূলের নেতাকর্মীরাও চাইছেন যেন আমি নির্বাচন করি। আমি যদি নির্বাচিত হতে পারি তাহলে শ্রীপুরের সর্বস্তরের মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাব। সে জন্য সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here