শ্রীপুরে মাদ্রাসায় তালা ছয় মাস !

0
226

মোশারফ হোসাইন তযু-নিজস্ব প্রতিবেদক

ফজরের নামাজের পর মাইকে এলান এলাকার মা ও বোনেরা আপনাদের সন্তানদের ঘুম থেকে জাগিয়ে তাড়াতাড়ি মক্তবে পাঠিয়ে দেন। হুজুর এলান দিয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য অপেক্ষা করতেন। কিছুক্ষণ পর মক্তবের শিক্ষার্থীদের কলকাকলিতে মুখরিত হয়ে ওঠতো গাজীপুরের শ্রীপুরে মাওনা ইউনিয়নের সিংগারদিঘী গ্রামে সিংগারদিঘী দক্ষিণ পাড়া ফুরকানিয়া ও ইবতেদায়ী মাদরাসায়। দুই সমাজের একমাত্র মাদ্রাসা। সেখানে তিন বছর থেকে শুরু করে বারো-পনেরো বছর বয়সী কোমলমতি ছেলেমেয়েরা কায়দা- আমপারা আর কোরআনের তালিম নিতে আসতো।

জানা গেছে, প্রায় চার যুগ আগে সিংগারদিঘী গ্রামের হাজী শহর আলী মোড়ল, ফালু ভুঁইয়া, বারেক মোড়ল, আলাউদ্দিন ভুইয়ারা মক্তব মাদ্রাসার জন্য জমি দান করেন। সেখানে মাটি দিয়ে একটি ঘর নির্মাণ করে যুগের পর যুগ সমাজের ছেলে মেয়েরা কায়দা-আমপারা ও কোরআনের তালিম নিতো। মাদ্রাসার ঘর অনেক পুরনো হওয়ায় ঘরের বিভিন্ন অংশে ফাটল দেখা দিলে বিভিন্ন সময় মাদ্রাসার কার্যক্রম বন্ধ থাকতো। ২০১৬ সালের শেষ দিকে মোড়ল বাড়ি, ভুঁইয়া বাড়ি ও শেখ বাড়ি এবং স্থানীয়দের সহযোগিতায় পুরনো মাটির ঘর ভেঙে আধাপাকা টিনশেড ঘর নির্মাণ করে শিক্ষার্থীদের জন্য তিনটি শ্রেণী কক্ষ তৈরি করা হয়। ফুরকানিয়ার জন্য দুইজন হুজুর ও ইবতেদায়ীর জন্য দুইজন বেতনভুক্ত শিক্ষক চাকরিও করতেন এখানে।

ছয় মাস ধরে মাদ্রাসায় তালা ঝুলছে এ বিষয়ে এলাকাবাসীর কাছে জানতে চাইলে কেউ কেউ বলেন স্থানীয় নুরু মোড়ল বিভিন্ন অভিযোগ তুলে মাদ্রাসায় প্রথমে তালা ঝুলিয়ে দেন এবং কিছু দিন পর ভুঁইয়া পরিবারের পক্ষ থেকে কে বা কাহারা তালা ঝুলিয়ে চলে যান। প্রতিহিংসার কারণে পবিত্র রমজান মাসে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা কোরআন পড়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বলে এলাকাবাসী জানান ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, যেখানে প্রতিদিন শিক্ষার্থীদের কলকাকলিতে মুখরিত হয়ে ওঠতো মাদ্রাসা ও চারপাশ। সেই মাদ্রাসার তিনটি কক্ষে তিনটি তালা ও বারান্দায় একটি তালা ঝুলতে দেখা গেছে। কিছু কুচক্রী মহলের ইন্ধনে ছয় মাস ধরে বন্ধ থাকা মাদ্রাসাটি ময়লার স্তপ পড়ে গেছে।

স্থানীয় নুরু মোড়ল তালা ঝুলানোর কথা অস্বীকার করে বলেন, দুই সমাজের একমাত্র আমাদের মাদ্রাসাটি ভালো ভাবেই চলতে ছিলো। হঠাৎ এ মাদ্রাসা দেখিয়ে কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে স্থানীয় আব্দুল ছাত্তার শেখ এর স্ত্রীর নামে ইসলামিক ফাইন্ডেশন সংস্থা থেকে আরো একটি প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন আনলে সমাজের কেউ কেউ এ নিয়ে মনোক্ষুণ হন। এ নিয়ে এলাকায় আলোচনা-সমালোচনা শুরু হলে হোসেন ভুঁইয়া মাদ্রাসায় তালা মেরে বন্ধ করে দেন। এ বিষয়ে হোসেন ভুঁইয়ার মোবাইলে একধিকবার ফোন করেও পাওয়া যায়নি।

সিংগারদিঘী দক্ষিণ পাড়া ফুরকানিয়া মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতি নজরুল মোড়ল জানান, মাদ্রাসাটি তিন বছর আগেও মাটির ঘর ছিলো। স্থানীয়দের সহযোগিতায় আধাপাকা টিনশেড ভবন করি। আমাদের দুই সমাজের ৩০০ পরিবারের প্রায় ১০০জন কোমলমতি ছেলে-মেয়েরা কায়দা-আমপারা আর কোরআনের তালিম নিতে আসতো। কিছু কুচক্রী মহলের ইন্ধনে ছয় মাস ধরে মাদ্রসায় তালা ঝুলছে। এতে আমাদের ছেলে-মেয়েরা কোরআন পড়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তিনি আরো জানান, ইসলামিক ফাউন্ডেশন নামে একটি সংস্থা মাদ্রাসায় আনার পর থেকে মাদ্রাসার কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। তিনি মাদ্রাসাটি দ্রুত চালুর দাবী জানান।

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রেহেনা আক্তার শ্রীপুর বার্তাকে জানান, এ বিষয়ে আমার কাছে কেউ লিখিত কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here