সমাজের সাধারণ মানুষের সঙ্গী ডা: খালেদ

0
877

মোশারফ হোসাইন তযু, নিজস্ব প্রতিনিধি: সমাজ সেবক, মানব সেবক, শিল্প সাহিত্য নিবেদিত এই মানসিকতা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন পরম বিনয়ী ব্যাক্তিত্বের এক প্রকাশিত নাম ডা: খালেদ মোহাম্মদ ইকবাল । তিনি তার মনের আবেগময়ী ভাব প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন- মানুষের সেবা করতে পারলে তিনি নিজেকে ভীষণ গর্বিত মনে করেন। যারা মানব সেবা করেন তারাই প্রকৃত মানুষ। একজন মানুষ প্রকৃত জনসেবার মধ্যে দিয়েই আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করতে পারে। অর্জন করতে পারে মানুষের ভালবাসা । সকল লোভ, লালসা, অর্থ মোহের উর্ধ্বে থেকে মানব সেবা করে স্বরণীয় হয়ে থাকতে চাই মানুষের হৃদয়ে ।

দলমত নির্বিশেষে সকলেই তাকে ভালবাসে। শুধু মানুষের সন্তষ্টি নয় সৎ কর্মের মধ্যে দিয়েই একজন মানুষ আল্লাহর সন্তষ্টি অর্জন করতে পারে । তাছাড়াও যারা এই রকম উদারমনশীল প্রকৃতের মানুষ , ক্ষমা, বিণয়, সরলতা, সাধুতা, ও সৎ গুনাবলির অধিকারী হয়ে থাকেন । তেমনি একজন পরোপকারী, ন্যায়পরায়ণ, সময়ের গুণাবলী ও সময়ের শ্রেষ্ঠ সাহসী সন্তান, ডা: খালেদ মোহাম্মদ ইকবাল তিনি এলাকায় যেমনি দক্ষ ও বলিষ্ঠ নেতৃত্তের অধিকারী তেমনি একজন সমাজ সেবী শিক্ষানুরাগী হিসাবে সমাজে সমাধিক পরিচিত । সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার কন্ঠ প্রচ্ছন্নতায় যিনি সমাজ সেবায় এক উজ্জ্বল তারকা । যিনি হাটি হাটি পা পা করে দ্রুত নিজেকে সমাজ সেবক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছেন । যিনি এলাকার ছোট-বড় আবাল বৃদ্ধ বনিতার প্রিয় মানুষ, গরীব দুখীসহ সমাজের সাধারণ মানুষের সঙ্গী । অসহায় দরিদ্র মানুষের সহায়ক । তিনি এমনি একজন মানুষ তাকে সকল শ্রেণীর মানুষ ভালবাসেন । তিনিও তাদেরকে মনে প্রাণে ভালবাসেন।

শ্রীপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আহবায়ক ও গাজীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ডা: খালেদ মোহাম্মদ ইকবাল বলেন, সব সময় তার এলাকার মানুষের সুখে দু:খে এগিয়ে যান। তিনি চান না তার দ্বারা কোন মানুষ বিন্দু পরিমান কষ্ট পাক । মানুষের সুখে দুখে তাদের সেবা করতে পারলে তিনি নিজেকে ভীষণ গর্বিত মনে করেন। আর আমি সারা জীবন সাধারন মানুষের সেবা করার মধ্য দিয়ে সমাজ সেবা করে যাবো ।

ডা: খালেদ মোহাম্মদ ইকবাল গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের গাজীপুর গ্রামের পিতা ইসমাঈল হোসেন, মাতা মোমেনা খাতুনের গর্ভে ৩১ ডিসেম্বর ১৯৮০সালে জন্ম গ্রহণ করেন । বাবা মরহুম ইসমাঈল হোসেন গাজীপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন, জীবনের প্রতিটি মুহুর্তই মানুষের সেবাই নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন ।

ডা: খালেদ মোহাম্মদ ইকবাল আরো বলেন, আমার বাবা ইসমাঈল হোসেন স্বর্ণ পদক প্রাপ্ত ও বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন। ১৯৮৪ সাল থেকে ১৯৯৫সাল পর্যন্ত সুনামের সহিত গাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সারাজীবন মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। ইউনিয়ন পরিষদ, হাসপাতালসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য দান করে গেছেন বহু জমি। আমি বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ব বিদ্যালয়ের হৃদরোগ বিভাগের রেসিডেন্ট ডাক্তার হিসেবে কর্মরত আছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here